সন্ত্রাস বিরোধী আইনের মামলায় স্বপন,মাসুমের ১দিনের রিমান্ড

রূপগঞ্জ থানা পুলিশের দায়েরকৃত সন্ত্রাস বিরোধী আইনের মামলায় গ্রেপ্তার হওয়া জেলা যুবদলের সিনিয়র যুগ্ম সম্পাদক ও সোনারগাঁও উপজেলা যুবদলের আহবায়ক শহিদুর রহমান স্বপন ও ছাত্রদল নেতা আবু মাসুমের আবারও ১দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত।

বৃহস্পতিবার (১৯ নভেম্বর) সকালে জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আহমেদ হুমায়ুনের আদালতে আবারও আসামিদের হাজির করে ৭দিনের রিমান্ডের আবেদন করেন নারায়ণগঞ্জ জেলা গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশ। শুনানি শেষে আদালত ১দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। মামলা নং ১৬।

এর আগে একই মামলায় শহিদুর রহমান স্বপনের ৩দিন এবং ছাত্রদল নেতা আবু মাসুমের ১দিনের রিমান্ডে নিয়েছিলেন রূপগঞ্জ থানা পুলিশ।

এবিষয়ে নারায়ণগঞ্জ কোর্ট পুলিশের পরিদর্শক ওসি মো. আসাদুজ্জামান বলেন, রূপগঞ্জ থানা পুলিশের দায়েরকৃত সন্ত্রাস বিরোধী আইনে মামলাটি জেলা গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। মামলাটি অধিক তদন্তের স্বার্থে আসামিদের আদালতে হাজির করে আবারও ৭দিনের রিমান্ডের আবেদন করলে আদালত ১দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন।

প্রসঙ্গত, গত (৫ নভেম্বর) দিবাগত রাতে ভুলতা পুলিশ ফাঁড়ির উপপরিদর্শক (এসআই) আমিনুর রহমান আমান বাদী হয়ে ২০০৯ সালের সন্ত্রাস বিরোধী আইনে শহিদুর রহমান স্বপনকে প্রধান আসামী করে ১০১ জনের বিরুদ্ধে রূপগঞ্জ থানায় মামলাটি দায়ের করেন।

মামলার বাকী আসামীরা হলেন, বিএনপির সদস্য মোস্তাফিজুর রহমান দিপু ভুইয়া, জেলা যুবদলের সাধারণ সম্পাদক গোলাম ফারুক খোকন, ছাত্রদলের সাবেক কেন্দ্রীয় সহসভাপতি দুলাল আহমেদ, জেলা যুবদল যুগ্ম সম্পাদক আরিফুজ্জামান ইমন, রূপগঞ্জ যুবদলের আহবায়ক দেলোয়ার হোসেন, সজীব, নারায়ণগঞ্জ যুবদল নেতা দুলাল, সারোয়ার হোসেন রাজীব, আবু বক্কর, নয়ন, রাশিদুল হক ও গনিসহ অজ্ঞাত আরো ৮০-৯০ জনকে আসামী করা হয়।

মামলায় উল্লেখ করা হয়, মোস্তাফিজুর রহমান ভূইয়া দিপুর প্ররোচনায় বিদেশে অবস্থানরত দলের সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানের সাথে ল্যাপটপ প্রজেক্টরের মাধ্যমে রাষ্ট্রবিরোধী অপরাধ সংগঠনের উদ্দেশ্যে ষড়যন্ত্রমূলক সন্ত্রাসী কর্মকান্ড করার লক্ষ্যে শলা-পরামর্শ করিতেছিল। গোপন সংবাদে এমন খবর পেয়ে অভিযান চালায় ভুলতা ফাঁড়ির পুলিশ।