নিখোঁজের ৫দিন পর বুড়িগঙ্গা থেকে লাশ উদ্ধার

ফতুল্লা প্রতিনিধি ঃ

রাজধানীর গাবতলী এলাকায় তুরাগ নদীতে নিখোঁজের ৫ দিন পর বুড়িগঙ্গায় অবসরপ্রাপ্ত নৌবাহিনী কর্মকর্তার মাদ্রাসা পড়ুয়া ছেলে ফেরদাউসুর রহমানের (১৫) লাশ ভেসে উঠেছে। শুক্রবার বিকেলে নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লায় মেরিএন্ডারসনের কাছে বুড়িগঙ্গা নদী থেকে পাগলা নৌপুলিশ লাশটি উদ্ধার করেছে। নিহত ফেরদাউসুর রহমান মিরপুর-১৩ এর সেনপাড়া এলাকার অবসরপ্রাপ্ত নৌবাহিনী কর্মকর্তা দেওয়ান মোঃ নজরুল ইসলামের ছেলে। সে বাবা মায়ের ৫জন ছেলে সন্তানের মধ্যে সবার ছোট। স্থানীয় একটি মাদ্রাসায় লেখা পড়া করেন। নিহতের বড় ভাই নৌবাহিনী সদস্য দেওয়ান আজমীর জানান, তার বাবা নৌবাহীনি থেকে অবসর নিয়েছেন। এরপর তারা দুই ভাই নৌবাহীনিতে যোগ দিয়েছেন। আর ছোট তিন ভাই লেখা পড়া করেন। তারা ৫ ভাইয়ের মধ্যে ফেরদাউস সবার ছোট। তিনি আরো জানান, ফেরদাউসুর রহমানকে তার বন্ধু ইকরাম গাববতলী হাটে গরু দেখার কথা বলে ঈদের ৩দিন আগে ১৯ জুলাই দুপুরে বাসা থেকে ডেকে নিয়ে যায়। এরপর তার আরো বন্ধুরা মিলে তাকে গাবতলী হাটে না নিয়ে দারুস সালাম থানাধীন গাবতলী এলাকায় তুরাগনদীতে গোছল করতে যায়। সেখানে নিয়ে ফেরদাউসকে পানিতে চুবিয়ে তার বন্ধুরা হত্যা করে লাশ নদীতেই রেখে পালিয়ে যায়। পরে জানতে পেরে অনেক খোজা খুজি করেও কোন সন্ধান পাইনি। আজ খবর পেয়ে ফতুল্লার পাগলা নৌ পুলিশ ফাড়িতে এসে ফেরদাউসুর রহমানের লাশ সনাক্ত করেছি। এবিষয়ে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে। লাশ উদ্ধারকারী ফতুল্লার পাগলা নৌ পুলিশ ফাড়ির এসআই জমসেদ আলী জানান, লাশটি ফতুল্লার মেরিএ্যান্ডারসনের কাছে বুড়িগঙ্গা নদীর দক্ষিন কেরানীগঞ্জ এলাকার পানগাও থেকে উদ্ধার করা হয়েছে। অতিরিক্ত পচনের কারনে মৃতদেহে কোন আঘাতের চিহ্ন বুজা যায়নি। এবিষয়ে দক্ষিন কেরানীগঞ্জ থানায় পুলিশের পক্ষ থেকে একটি অপমৃত্যু মামলা দায়ের করা হয়েছে। এরপর ময়না তদন্তের জন্য মৃতদেহটি রাজধানীর মিডফোর্ড হাসপাতালে প্রেরন করা হয়।