কুতুবপুরে কিশোর গ্যাং বাহিনীর হামলায় যুবক নিহত গ্রেফতার -২

ফতুল্লা প্রতিনিধি ঃ

নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলার পাগলা নয়ামাটি এলাকায় কিশোর গ্যাং বাহিনীর হামলায় মাসুদ (২৬) নামের এক যুবক নিহত হয়েছেন ।নিহত মাসুদ নয়ামাটি তাজুরমাঠ এলাকার রফিকুল ইসলামের ছেলে ও রুহুল আমীনের বাড়ি ভাড়াটিয়া , আজ ২৪ জুলাই দুপুর ১২ টার সময় নয়ামাটি লাবনী জুস কারখানার সামনে এই ঘটনা ঘটে । প্রথমে আহত অবস্থায় পাগলা একটি প্রাইভেট হাসপাতালে নিয়ে যায় নিহত মাসুদ কে পরে তাকে ঢাকা মেডিকেলে নিয়ে গেলে সেখানে কত্যর্বরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষনা করেন । এবিষয় এলাকাবাসী জানান বৌউবাজার এলাকা থেকে কিশোর গ্যাং বাহিনীর সদস্য সোহেল ও তার সাথে থাকা প্রায় ১০ থেকে ১৫ জনের এক দল গ্যাং বাহিনী প্রকাশ্য নয়ামাটি লাবণী জুস কারখানার সামনে আসে এসময় সোহেল সহ প্রত্যেকের হাতে গিয়ার ও সেন চাপাটি ছিলো ,এসময় তারা পূর্ব এর শত্রুতার জের ধরে মাসুদ (২৬) নামের এক গামেন্স কর্মী উপর হামলা চালায় পরে ঘটনা স্থানেই মাসুদ মারা যায়, এই ঘটনায় এলাকাবাসী কিশোর গ্যাং সদস্য সোহেল ও তার বাবা আইয়ব আলীকে আটক করে পুলিশের হাতে তুলে দেন । ঘটনাস্থানে এসে এস আই সোহাগ চ্যেধুরী আসামীদের আটক করে থানায় নিয়ে যায় । বেশ কয়েক মাস ধরে কুতুবপুরে দিন দিন বেরেই চলেছে গ্যাং বাহিনীর মারামারি সহ নানা অপকর্ম এর আগে পাগলা নয়ামাটি ভাবির বাজার এলাকায় কিশোর গ্যাং স্বাধীন বাহিনী প্রকাশ্য দেশীয় অস্ত্র নিয়ে এলাকায় তান্ডব চালায় এই ঘটনায় কোন ব্যবস্থা নেয়নি পুলিশ তাছাড়া একে পর এক ঘটনা করেই চলছে এই কিশোর গ্যাং বাহিনী , কুতুবপুরে নয়ামাটি, ভাবির বাজার ,বৌউবাজার ,শাহীবাজার , নুরবাগ এলাকায় প্রায় ঘটছে কিশোর গ্যাং বাহিনীর ভিবিন্ন ঘটনা । এদের মধ্যে কিশোর গ্যাং বাহিনীতে যারা আলোচনায় রয়েছেন ,নয়ামাটি ভাবির বাজার এলাকার স্বাধীন (২২) রাকিব(২২) মুন্না(২০)সহ এই গ্যাং বাহিনীতে রয়েছে প্রায় শতাধিক সদস্য ,তাছাড়া বৌউবাজার এলাকায় একজন শীর্ষ সন্ত্রাসীর শেল্টারে রয়েছে প্রায় কয়েক হাজার কিশোর গ্যাং এর সদস্য । কোন অদৃশ্য ক্ষমতার বলে প্রশাসন এখনো কোন ব্যবস্থা নিচ্ছে না তা নিয়ে নানা প্রশ্ন জনমতে । সাধারন মানুষের দাবি অচিরেই প্রশাসন এদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা না নিলে পরিস্থিতি আরো ভয়াভহ রুপ নিবে বলে মনে কনে তারা ।