ছেলের প্রান বাঁচাতে ট্রাক চাপায় পিতার মৃত্যু

সিদ্ধিরগঞ্জ প্রতিনিধি :  সন্তানকে বাঁচাতে রিকশা থেকে ধাক্কা দিয়ে রাস্তার পাশে ফেলে ট্রাকের নিচে চাপা পড়ে মারা গেলেন বাবা। এতে সামান্য আহত হয়েছেন ছেলে। একই ঘটনায় মারা গেছেন রিকশা চালক। বেকার থাকার পর মায়ের দোয়া নিয়ে রিকশা চালানোর প্রথম দিনেই মারা গেলো রিকশা চালক। গত বৃহস্পতিবার মধ্যরাতে সিদ্ধিরগঞ্জের চিটাগাংরোড বিদ্যুৎ অফিসের সামনে এই মর্মান্তিক দূর্ঘটনাটি ঘটে।
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, আদমজী থেকে ঢাকাগামী একটি ট্রাক (চট্ট মেট্রো-শ ১১-১৮৫৬) দ্রুত গতিতে এসে রিকশাটিকে চাপা দিলে ঘটনাস্থলেই চালক মারা যায়। অপরদিকে রিক্সারোহীকে গুরুতর অবস্থায় হাসপাতালে নেওয়া হলে সেখানে তার মৃত্যু হয়। এ ঘটনায় ঘাতক ট্রাকটিকে আটক করা হয়েছে।
দুর্ঘটনায় নিহতরা হলো রিকশা যাত্রী নূর হোসেন (৫০) ও রিকশা চালক আকাশ (১৭)। নিহত নূর হোসেন ঢাকার গুলিস্তানের কাপ্তান বাজারের মুরগী ব্যবসায়ী। সে নারায়ণগঞ্জ জেলার সোনারগাঁও থানাধীন মঞ্জুরখোলা গ্রামের মোহাম্মদ আলী মিয়ার ছেলে। নিহত রিকশা চালক আকাশ নেত্রকোনার মোহনগঞ্জের সাতু গ্রামের মাজাহারুলের ছেলে। সে পরিবার নিয়ে সিদ্ধিরগঞ্জে আঁটি ওয়াপদা এলাকায় ফজলুল হকের বাড়িতে ভাড়া থাকতো।
নিহত নূর হোসেনের ছোট ভাই জানান, আমার বড় ভাই ঢাকায় কাপ্তান বাজারে মুরগীর ব্যবসা শেষে বাসায় ফেরার পথে ছেলেসহ দূর্ঘটনার কবলে পড়েন। ছেলেকে বাঁচাতে ধাক্কা দিয়ে রিকশা থেকে ফেলে দিলে ভাতিজা রাস্তার পাশে ছিটকে পড়ে। এতে ভাতিজা বেঁচে গেলেও আমার ভাই ট্রাকের নিচে চাপা পড়ে মারা যায়।
নিহত রিকশা চালকের বড় বোন জানান, কোন কাজ কর্ম না থাকায় মায়ের কাছে দোয়া চেয়ে আমার ভাই রিকশা নিয়ে বের হয়েছিল। আয়-রোজগার করতে গিয়ে প্রথম দিনেই সে মারা যায়।
সিদ্ধিরগঞ্জ থানার এস আই বাদশা আলম জানান, দূর্ঘটনার পরপরই ট্রাকটি আটক করা হয়েছে। তবে চালক পালিয়ে যায়।