এসপির কড়া হুুশিয়ারীর পরও গিরিধারা-শান্তিধারা হাটে ব্যাপারীদের মারধর করে ছাগল নামানোর অভিযোগ

ফতুল্লার শান্তিধারা গিরিধারা এলাকায় সড়কে বসানো পশুর হাটে জোর করে পশু নামানোর অভিযোগ উঠেছে ইজারাধার রাজ্জাক বেপারী ,সালাউদ্দিস ভ’ইয়া , আলমগীর সহ তার বাহিনীর বিরুদ্ধে। এসময় পশুর বেপারীদেরও মারধর করা হয়। পরে পুলিশের হস্তক্ষেপে সাদ্দাম নামে ফরিদপুর জেলার ভাংগা থানার আব্দুল্লাবাদ গ্রামের এক পশুরীর বেপারী উদ্ধার হয়। শুক্রবার রাত সাড়ে ৮টায় সাইনবোর্ড এলাকায় এঘটনা ঘটে।
পশুর বেপারী সাদ্দাম জানান, গ্রামের বাড়ি থেকে ৪জন মিলে একটি পিকআপভ্যানে করে ২১টি ছাগল নিয়ে ফতুল্লার ভূইগড় রূপায়ণ এলাকায় আসছিলাম। এসময় সাইনবোর্ড এলাকায় আসা মাত্র আলমগীর সহ ১০ থেকে ১৫ জন লোক পথরোধ করে চালক মামুনকে মারধর করে গাড়ি থামিয়ে সড়কের ঢালে নিয়ে যায়। সেখানে নিয়ে সকল ছাগল গাড়ি থেকে জোর করে নামানোর চেষ্টা করা হয়। এসময় আমি ছাগল নামাতে বাধা দেয়ায় আমাকে কয়েকটি চরথাপ্পর দেয়। তখন পুলিশ এসে ছাগলসহ আমাকে উদ্ধার করে ওই স্থান থেকে বের করে দেয়।
এবিষয়ে রাজ্জাক বেপারী বলেন, সদর উপজেলা থেকে ইজারা নিয়ে বৈধ ভাবে হাট পরিচালনা করছি। আমি জোর করে কোন পশুর বেপারীকে হাটে আনতে বাধ্য করিনা। আমার বিপক্ষের লোকজন আমাকে হয়রানী করতে এসব প্রচার করছে।