নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লায় অপহরণের টাকা নিতে এসে কিশোর গ্যাংয়ের ৬ সদস্য ধরা

নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লায় এক কিশোরকে অপহরণ করে তার মায়ের কাছ থেকে মুক্তিপণের টাকা নিতে এসে পুলিশের হাতে ধরা পড়েছে কিশোর গ্যাংয়ের ছয় সদস্য। শুক্রবার (২৮ আগস্ট) ফতুল্লার শিয়াচর তক্কার মাঠ এলাকায় নাজমুল গার্মেন্টেসের সামনের রাস্তা থেকে তাদেরকে আটক করা হয়।

এ সময় আটকদের কাছ থেকে দুটি সুইচ গিয়ার উদ্ধার করা হয়। এছাড়াও অপহৃত কিশোর সাগরকে (১৫) উদ্ধার করে পুলিশ।

আটকরা হচ্ছে- ফতুল্লার শিয়াচর তক্কার মাঠ এলাকার সাব্বির মিয়ার ছেলে অয়ন (১৬), একই এলাকার মনোয়ারার বাড়ির ভাড়াটিয়া দেলোয়ার হাওলাদারের ছেলে তরিকুল ইসলাম (১৭), সাত্তার মিয়ার ভাড়াটিয়া জামাল মিয়ার ছেলে ইমরান হোসেন (১৭), রানীর বাড়ির ভাড়াটিয়া জাকির হোসেনের ছেলে হাসান (১৬), একই বাড়ির ভাড়াটিয়া শাহ আলমের ছেলে হাবিব (১৭) ও শিয়াচর লালখাঁর মিন্টুর বাড়ির ভাড়াটিয়া হাসান মিয়ার ভাড়াটিয়া রাসেল (১৬)।

এ ঘটনায় সাগরের মা পোসাগী খানম বাদী হয়ে কিশোর গ্যাংয়ের ছয় সদস্যকে আসামি করে ফতুল্লা মডেল থানায় মামলা করেছেন।

ফতুল্লা মডেল থানা পুলিশের উপপরিদর্শক (এসআই) মো. রাসেল শেখ জানান, সাগর গত ২২ আগস্ট তার গ্রামের বাড়ি গাইবান্ধায় বেড়াতে যায় এবং ২৭ আগস্ট রাতে সেখান থেকে শহরের দেওভোগের বাসায় আসার জন্য রওনা দেয়। শুক্রবার (২৭ আগস্ট) সকাল ৮টার দিকে সাগরের মোবাইল ফোন থেকে তার মায়ের কাছে ফোন করে ছেলের মুক্তির জন্য ২০ হাজার টাকা দাবি করে ওই কিশোররা। তিনি তখন ২০ হাজার টাকা দিতে অপারগতা প্রকাশ করে ৫ হাজার টাকা দিতে চান। তখন তারা তাকে একটি বিকাশ নম্বর দিয়ে টাকা দিতে বলে। কিন্তু সাগরের মা তার ছেলেকে আগে দেখবেন তারপর টাকা দেবেন বললে ওই কিশোররা তক্কার মাঠ এলাকায় এসে ফোন দিতে বলে।

তিনি আরও জানান, পরে সাগরের মা থানায় উপস্থিত হয়ে বিষয়টি জানালে পুলিশ তাকে সঙ্গে নিয়ে অভিযানে নামে। তক্কার মাঠ নাজমুল গার্মেন্টসের সামনে গিয়ে পুলিশ আড়ালে থেকে পোসাগী খানমকে দিয়ে ফোন দিয়ে টাকা নিয়ে যাওয়ার জন্য আসতে বলে ওই কিশোরদের। এ সময় তারা টাকা নিতে এলে তাদেরকে আটকসহ সাগরকে উদ্ধার করে পুলিশ। তাদের কাছ থেকে দুটি সুইচ গিয়ার উদ্ধার করা হয়।