এখানে অনেকেই জাতীয় পার্টি করতে চায় কিন্তু তারা ভয়ে করতে পারে না

 জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য এবং ঢাকা-৫ আসনের সংসদ সদস্য প্রার্থী মীর আবদুস সবুর আসুদ বলেন, আজকের অনুষ্ঠানে আমাকে আসতে বলা হয়েছিলো আমি আসলাম। আমি এসে দেখে গেলাম কিভাবে অত্যাচার হচ্ছে নারায়ণগঞ্জের জাতীয় পার্টির নেতারা। এখানে দেখলাম ব্যানারে খোকার নাম নাই। এখানে অনেকেই জাতীয় পার্টি করতে চায় কিন্তু তারা ভয়ে করতে পারে না। আমি চেয়ারম্যানের কাছে এই বিষয়ে কথা বলবো। গভীর অন্ধকারে ছেয়ে গেছে আমাদের এই মাতৃভূমি। দেশের বড় দুই রাজনৈতিক দলের প্রতি সাধারণ মানুষের অনিহা। দেশের মানুষ এখন জাতীয় পার্টির দিকে তাকিয়ে আছে।

শনিবার (১৯ সেপ্টেম্বর ) দুপুরে নারায়ণগঞ্জ ১ং রেল গেইট সংলগ্ন আল জয়নাল প্লাজা জাতীয় পার্টির কার্যালয়ে, জাতীয় মুক্তিযোদ্ধা পার্টি নারায়ণগঞ্জ জেলা আহবায়ক কমিটির উদ্যোগে হুসেইন মুহাম্মদ এরশাদ এর প্রথম মত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে আলোচনা ও পরিচিতি সভা এবং দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি’র বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

এসময় নারায়ণগঞ্জ জেলা মুক্তিযোদ্ধা পার্টির আহবায়ক বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল মোতালিব এর সভাপতিত্বে ও জাতীয় পার্টির সদস্য মো. গোলাম কাদিরের পরিচালনায় উপস্থিত ছিলেন, জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যানের উপদেষ্টা বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. জামাল হোসেন, জহিরুল আলম রুবেল, ভাইস চেয়ারম্যান আরিফুর রহমান খান, সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব গোলাম মোহাম্মদ রাজু, যুগ্ম মহাসচিব আমির হোসেন ঢালু, মো. সালাউদ্দিন আহমেদ খোকা মোল্লা, মো. নোমান মিয়া, সমাজ কল্যান সম্পাদক এম এ রাজ্জাক খান, জাতীয় মুক্তিযোদ্ধা পার্টির সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. ইসহাক ভূইয়া, নারায়ণগঞ্জ জেলা জাতীয় মুক্তিযোদ্ধা পার্টির পৃষ্ঠপোষক ও জাতীয় পার্টির সদস্য মো. জয়নাল আবেদীন, জাতীয় মুক্তিযোদ্ধা প্রজন্ম পার্টির আহবায়ক মো. জহির ইসলাম মিন্টু, জাতীয় পার্টির যুগ্ম আইন বিষয়ক এড. আব্দুর রশিদ, জাতীয় মুক্তিযোদ্ধা পার্টির সহ-সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা এইচ এম শফিউল আলম, জাতীয় পার্টির সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা কুতুব উদ্দিন আহমেদ, কাকলী আক্তার কাকন, নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলা জাতীয় পার্টির আহবায়ক এড. মজিদ খন্দকার, সদস্য সচিব কাজী দেলোয়ার হোসেন প্রমূখ।