কিশোর গ্যাং এর মধ্যে সংঘর্ষের নিহতের ঘটনায় আটক -২

ফতুল্লার ইসদাইর বুড়ির দোকান এলাকায় দুই গ্রুপ কিশোরের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনায় ছুরিকাঘাতে নাইম নামে এক গার্মেন্টস শ্রমিক খুন হয়েছে।  সংঘর্ষে আল আমিন,লিমনসহ তিনজন ছুরিকাহত হয়েছে।

শুক্রবার(৯ অক্টোবর ) রাত সাড়ে ৯ টায় ইসদাইরের বুড়ির দোকান এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

নিহত নাইম ইসদাইর এলাকার মৃত খলিল মিয়ার ছেলে। এ ঘটনায় হৃদয় ও হাবিব নামের দুই কিশোরকে আটক করা হয়েছে।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে ফতুল্লা মডেল থানার ওসি (তদন্ত) শফিকুল ইসলাম জানান,ছুরিকাঘাতে নিহত নাইম ও হত্যাকারীরা সকলেই গার্মেন্টস শ্রমিক। ঘটনার সময় তাদের মধ্য কোন এক বিষয় নিয়ে কথা কাটাকাটি হয়। কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে ছুরিকাঘাত করে হত্যা করা হয় নাইমকে। ঘটনার সংবাদ পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে হৃদয় ও হাবিব নামক দুজনকে গ্রেফতার করে। তবে তারা কোন গার্মেন্টসের শ্রমিক এ বিষয়ে এখনো জানতে পারেনি পুলিশ। সংঘর্ষের প্রকৃৃত কারন জানতে ও জড়িতদের চিহৃিত করে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে বলে তিনি জানান।

ঘটনাস্থলে যাওয়া ফতুল্লা মডেল থানার এসআই মিজানুর রহমান জানান, দুজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। লাশ ময়না তদন্তের জন্য শহরের জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।

এ বিষয়ে ফতুল্লা মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আসলাম হোসেন বলেন, এ ঘটনায় দুইজনকে আটক করা হয়েছে৷ দুই পক্ষের মারামারির ঘটনায় আটক হৃদয় ছুরিকাঘাত করে নাইমকে৷ এ ঘটনায় মামলা ও অন্যান্য আইনগত ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে৷