এখন আর আগের মত টিনসেড স্কুল পাওয়া যায়না-এমপি সেলিম ওসমান

নারায়ণগঞ্জ সদর ও বন্দর -৫ আসনের এমপি এবং বিকেএমইএ সভাপতি একেএম সেলিম ওসমান বলেছেন, আমরা নারায়ণগঞ্জে এতগুলো স্কুল করতে পেরেছি। যার বেশীর ভাগই উচুঁ ভবন হয়েছে। আজকে আর আগের মত টিনসেড স্কুল পাওয়া যায়না। তবে ভালো একটা মেডিকেল কলেজ নাই, বিশ্ববিদ্যালয় নাই। আমি ভবিষ্যত প্রজন্মের জন্য কিছু করতে চাই। আমি একাধিকবার শিক্ষা অধিদপ্তরে গিয়ে বসেছি। আজকে এমন একটি বিপদে পড়ে আছি। ৫৫ কোটি টাকা বরাদ্ধের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের অনুমোদন হয়ে আছে। একটা টেকনিক্যাল স্কুলের জন্য সরকার অনুমোদন দিয়েছে। চিঠিটা দপ্তরে দপ্তরে ঘুরছে। আমার বন্দর ও নারায়ণগঞ্জে জায়গা নাই, কতটা দু:খ জনক।

রবিবার রাতে শহরের চানমারী এলাকাস্থ নারায়ণগঞ্জ চেম্বার অব কর্মাস এন্ড ইন্ডাস্ট্রিজ ভবনের সমম্মেলন কক্ষে সংগঠনের সভাপতি খালেদ হায়দার খান কাজলের সভাপতিত্বে আয়োজিত মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি আরো বলেন, আমাদের নারায়ণগঞ্জবাসী এতটা অসহায়, যে সবকিছুর জন্য ঢাকায় যেতে হয়। প্রধানমন্ত্রীও একটি ভিডিও কনফারেন্সে এটি বলেছেন। তাহলে আমার ভবিষ্যত প্রজন্মের কি হবে? একটা টেকনিক্যাল স্কুল হলে নারায়ণগঞ্জবাসী উপকৃত হতো। গত ছয়মাস ধরে এটা নিয়ে ভাবছি আমি। হয়তো আগামী কয়দিনের মধ্যে যদি এ জায়গাটা না দেয়া যায়, চলে যাবে। তাই আমি জেলা প্রশাসন ও সিটি করপোরেশনের মেয়রের সহযোগীতা চাইবো। উনারা যেন আমাকে সহযোগীতা করেন।

শহরে যানজট প্রসঙ্গে সেলিম ওসমান বলেছেন, সড়কের বিভিন্নস্থান দখল করে স্ট্যান্ড গড়ে তোলা হয়েছে। অবৈধ ইজি বাইক ও রিক্সায় ভরে গেছে এগুলো বন্ধ করতে হবে। পরিবহন নেতা যারা রয়েছেন বিভিন্ন বাস রুট পারমিট ছাড়া চলছে এগুলোর জন্য আপনারা ব্যবস্থা নিন। ফিটনেস বিহীন গাড়ি কিভাবে চলে! আপনারা তো নেতা প্রয়োজনে সাংবাদিকদের সহযোগীতা নিন। সাংবাদিক সম্মেলন করুন, প্রশাসনকে লিখি অভিযোগ দিন।
ব্যবসায়ীদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, অনেকই ফাটল ধরাতে চায়। আপনারা প্রত্যেকে সর্তক থাকবেন। বেনামী অনেক সংগঠন হচ্ছে তারা নেতা হতে চায়। আপনারা যা কিছুই করবেন চেস্বার অব কর্মাসের সাথে আলোচনা করে নিবেন। নারায়ণগঞ্জে ব্যবসায় অরাজকতা সৃষ্টি করবেন না।

এসময় উপস্থিত ছিলেন, জেলা মুক্তিযোদ্ধা সাবেক কমান্ডার মোহাম্মদ আলী, ইয়ার্ন মার্চেন্ট সাবেক সভাপতি সোলায়মান, বিকেএমইএ এর সিনিয়র সহ সভাপতি মো. হাতেম মিয়া, সাবেক নারী সংরক্ষিত এমপি এড. হোসনে আরা বাবলী, পরিবহন নেতা ও মুক্তিযোদ্ধা মো. শহিদুল্লাহ, ইব্রাহীম চেঙ্গিস, আয়ূব আলী, বন্দর উপজেলা চেয়ারম্যান এহসান, মহানগর যুবলীগের সভাপতি শাহাদাৎ হোসেন সাজনু, জেলা আইনজীবী সমিতি’র সভাপতি এড. মো. মোহসিন মিয়া সহ নারায়ণগঞ্জের বিভিন্ন ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের মালিক ও সংগঠনের নেতৃবৃন্দ।