৩২০ বস্তা চিনি ডাকাতির ঘটনায় চালকসহ তিনজন গ্রেফতার

নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁ উপজেলা থেকে ট্রাকভর্তি ৩২০ বস্তা চিনির ডাকাতির ঘটনায় চালকসহ তিনজনকে গ্রেফতার করেছে জেলা গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশ। একই সঙ্গে উদ্ধার করা হয়েছে ২৫৯ বস্তা চিনি।

বৃহস্পতিবার (০৫ নভেম্বর) বিকেলে জেলা পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে এক প্রেস ব্রিফিংয়ে এসব তথ্য জানান অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ডিবি) জায়েদ পারভেজ চৌধুরী।

প্রেস ব্রিফিংয়ে উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন) মোস্তাফিজুর রহমান এবং ডিবির ওসি মো. আলমগীর হোসেনসহ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা।

গ্রেফতারকৃতরা হলেন- ট্রাকচালক মো. সুমন প্রামাণিক (৩৫), হেলপার জুবায়ের আহম্মেদ লিংকন ও চোরাই চিনির ক্রেতা ব্যবসায়ী তজম আলী।

বুধবার রাতে বগুড়ার শিবগঞ্জ থানা এলাকা থেকে প্রথমে ট্রাকচালক মো. সুমন প্রামাণিককে গ্রেফতার করে পুলিশ। এরপর সুমনের দেয়া তথ্যমতে ব্যবসায়ী তজম আলীকে পাবনার ঈশ্বরদী থেকে গ্রেফতার করা হয়।

এ সময় তার কাছে বিক্রি করা ১৫২ বস্তা চোরাই চিনি উদ্ধার করা হয়। তজম আলীর দেয়া তথ্যমতে হেলপার জুবায়ের আহম্মেদ লিংকনকে একই এলাকা থেকে গ্রেফতার করা হয়। তার কাছ থেকে ১০৭ বস্তা চোরাই চিনি উদ্ধার করা হয়।

ডিবি পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. জায়েদ পারভেজ চৌধুরী বলেন, ৩১ অক্টোবর সন্ধ্যায় ট্রাকচালক সুমন ও তার হেলপার সোনারগাঁ উপজেলার মেঘনা সুগার মিলের ৩২০ বস্তা ফ্রেশ চিনি নিয়ে সিলেটের উদ্দেশ্যে যান।

গন্তব্যে না গিয়ে সেই চিনি ঈশ্বরদীর বাজার চাঁদআলী এলাকায় তজম আলী নামে এক ব্যবসায়ীর কাছে বিক্রি করে পালিয়ে যান। এ বিষয়ে ২ নভেম্বর সোনারগাঁ থানায় মামলা করা হয়। এরপর অভিযান চালিয়ে তিনজনকে গ্রেফতারসহ ২৫৯ বস্তা চোরাই চিনি উদ্ধার করা হয়। যার বাজার মূল্য আনুমানিক সাড়ে আট লাখ টাকা।

তিনি আরও বলেন, এই চোরাই চক্রের সঙ্গে যারা জড়িত তাদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে। গ্রেফতারকৃতদের আদালতে পাঠানো হয়। পরে সুমনের সাতদিনের রিমান্ড আবেদন করলে একদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন আদালত।